শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১ | ১ কার্তিক ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

লাকসামের শিবিরকর্মী এখন মেট্রো ওয়াশিংটনের আ.লীগ নেতা!

নিজস্ব প্রতিবেদক, যুক্তরাষ্ট্র
৯ অক্টোবর ২০২১ ১৯:২৯ |আপডেট : ১০ অক্টোবর ২০২১ ০৫:৪৯
মেট্রো ওয়াশিংটন আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি শিব্বির আহমেদ ওরফে অরপি আহমেদ
মেট্রো ওয়াশিংটন আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি শিব্বির আহমেদ ওরফে অরপি আহমেদ

কুমিল্লার লাকসাম উপজেলার সাবেক শিবিরকর্মী এখন যুক্তরাষ্ট্রের মেট্রো ওয়াশিংটন আওয়ামী লীগের নেতা। আশির দশকে লাকসামের নওয়াব ফয়জুন্নেছা সরকারি কলেজে পড়ার সময় ছাত্র শিবিরের প্রথম সারির সক্রিয় নেতা ছিলেন বর্তমান মেট্রো ওয়াশিংটন আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি শিব্বির আহমেদ ওরফে অরপি আহমেদ (ছদ্মনাম)। বর্তমানে তিনি ভার্জিনিয়া অঙ্গরাজ্যের আলেকজান্দ্রিয়ার বাসিন্দা। তিনি মেট্রো ওয়াশিংটন (ওয়াশিংটন ডিসি, ভার্জিনিয়া ও ম্যারিল্যান্ড) এলাকায় কখনো লেখক, কখনো সাংবাদিক, কখনো গীতিকার এবং কখনো সুরকারের পরিচয় দিয়ে থাকেন।

গত ২৬ সেপ্টেম্বর দৈনিক সরেজমিন বার্তায় প্রকাশিত এক প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, যুক্তরাষ্ট্রের ভার্জিনিয়ায় বসেও বিভিন্নভাবে দেশের বিএনপিসহ জামাত শিবিরের পৃষ্ঠপোষকতা করে আসছেন শিব্বির। শিবিরের সাবেক সক্রিয় সদস্য শিব্বির আহমেদ যুক্তরাষ্ট্রে এসে সুকৌশলে আওয়ামী লীগের অনুপ্রবেশ করলেও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তিনি নিজেকে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শের ধারক-বাহক হিসেবে প্রকাশ করেন।

তিনি আওয়ামী পরিবারের সন্তান হলেও দেশে আওয়ামী রাজনীতির সাথে তার কোনো সম্পৃক্ততা নেই বা ছিল না। প্রবাস থেকে বিএনপিসহ জামাত শিবিরের পৃষ্ঠপোষকতার পাশাপাশি যুক্তরাষ্ট্রে বিভিন্ন সংগঠনে প্রবেশ করে কোন্দল সৃষ্টি করে তা ভাঙার চেষ্টা করেন।

এ ব্যাপারে ভার্জিনিয়ার সুপরিচিত ‘ফ্রেন্ডস অ্যান্ড ফ্যামিলি’ নামের একটি সংগঠনের কথা উল্লেখ করা যেতে পারে। ২০০৯ সালের রেজিস্ট্রেশনকৃত এ সংগঠনে তিনি প্রবেশের পর কোন্দল লাগিয়ে সংগঠন থেকে বের হয়ে যান। ২০১৭ সালে প্রায় একই নামে আরেকটি সংগঠন গোপনে রেজিস্ট্রেশন করেন, যা ২০১৮ সালে প্রকাশ পায়। মেট্রো ওয়াশিংটন এলাকায় একই নামে আরও ৪/৫টি সংগঠন রয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে। এছাড়াও অত্র এলাকার আওয়ামী লীগের প্রবেশের পর নানাভাবে দলের ভেতরে কোন্দল সৃষ্টি করে দ্বিখণ্ডিত করেছেন স্থানীয় আওয়ামী লীগের কমিটি। তিনি সুকৌশলে মেট্রো ওয়াশিংটন (ওয়াশিংটন ডিসি, ভার্জিনিয়া ও ম্যারিল্যান্ড) একটি কমিটিতে সিনিয়র সহ-সভাপতির পদও বাগিয়েছেন।

একাধিক সূত্রে জানা গেছে, বৃহত্তর কুমিল্লার লাকসামের সাবেক প্রাদেশিক সদস্য ও মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক প্রয়াত জালাল আহমেদের পুত্র শিব্বির আহমেদ দীর্ঘদিন ধরে সপরিবারে ভার্জিনিয়া অঙ্গরাজ্যের আলেকজান্দ্রিয়ার বসবাস করছেন। প্রয়াত আওয়ামী লীগ নেতার পুত্র হলেও দেশে আওয়ামী রাজনীতির সাথে তার কোনো সম্পৃক্ততা নেই বা ছিল না। পক্ষান্তরে তিনি বিদেশে বসেও দেশে বিএনপিসহ জামাত শিবিরের পৃষ্ঠপোষকতা করার অভিযোগ উঠেছে। আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের উপেক্ষা করে বিএনপি-জামাতসহ ভিন্ন মতাদর্শীদের সাথে সখ্যতা গড়েছেন তিনি।

আশির দশকে লাকসামের নওয়াব ফয়জুন্নেছা সরকারি কলেজে পড়ার সময় ছাত্র শিবিরের প্রথম সারির সক্রিয় নেতা ছিলেন শিব্বির আহমেদ। তৎকালীন জেলা ছাত্রলীগ নেতা এবং বর্তমানে লাকসাম উপজেলা আ. লীগের সাধারন সম্পাদক অ্যাডভোকেট ইউনুস ভুঁইয়ার ওপর সন্ত্রাসী হামলার পর লাকসামের পরিস্থিতি উত্তপ্ত হলে যুক্তরাষ্ট্রে পাড়ি জমান শিব্বির। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের তৎকালীন ছাত্র শিবিরের সাবেক সভাপতি (বর্তমানে পলাতক জামাত নেতা) অধ্যাপক রেজাউল করিমের সাথে ঘনিষ্ঠ বন্ধুত্ব রয়েছে শিব্বিরের। তার সাথে গোপনে আঁতাত করে বর্তমানে লাকসাম-মনোহরগঞ্জে জামাতের রাজনীতিকে আবার পুরুজ্জীবিত করার চেষ্টা চলাচ্ছেন বলে অভিযোগ রয়েছে। বিএনপিসহ জামাত শিবিরের পৃষ্ঠপোষকতার পাশাপাশি তাদের নিজস্ব আঞ্চলিক গণমাধ্যমের আর্থিক যোগানদাতা হিসেবেও ভূমিকা রয়েছে শিব্বির আহমেদের। কয়েক বছর পর পর বিশেষ করে জাতীয় নির্বাচনের সময় দেশে গিয়ে তিনি বিএনপি-জামাতের নেতাকর্মীদের নিয়মিত মিটিং করেন। পিতৃ পরিচয় ব্যবহার করে প্রবাসে আওয়ামী লীগের মুখোশ পরে রাতারাতি আওয়ামী লীগের নেতা বনে গেছেন শিব্বির আহমেদ।

সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের মেট্টো ওয়াশিংটন আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি হিসেবে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক প্রচারণা চালাতে দেখা গেছে। গোপনে বিএনপি-জামাতের রাজনীতির পৃষ্ঠপোষক শিব্বির আহমেদ প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণের জন্য তার ফেসবুক পেজে প্রধানমন্ত্রীর প্রশংসামূলক নানা ধরনের পোষ্ট করতে দেখা গেছে। তিনি একাধিক অনলাইন নিউজ পোর্টালের সম্পাদক। আওয়ামী লীগের নেতাদের খুশি করার জন্য ‘আওয়ামী লীগ টাইমস ডটকম’ নামেও একটি পোর্টাল চালু করেছেন। এই পোর্টালেরও তিনি সম্পাদক ও প্রকাশক।

ভার্জিনিয়া প্রবাসী শিব্বির আহমেদের আওয়ামী লীগ সংশ্লিষ্ট ভার্চুয়াল রাজনীতি দেখে বিস্ময় প্রকাশ করেছেন লাকসামের আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। ইতোপূর্বে তারা কখনোই তাকে স্থানীয় লাকসামের আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের সাথে সম্পৃক্ত কিংবা তাদের পাশে দাঁড়াতে দেখেন নাই।

এদিকে, মেট্টো ওয়াশিংটন আওয়ামী লীগের একটি সূত্র জানিয়েছে বেশ কয়েক বছর আগে স্থানীয় আওয়ামী লীগের একটি সভায় প্রধানমন্ত্রীর ছেলে এবং তথ্য ও প্রযুক্তিবিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়ের উপস্থিতিতে শিব্বির আহমেদের এসব কর্মকাণ্ডের কথা তুলে ধরেছিলেন আওয়ামী লীগের নেতারা। কিন্তু এসব বিষয়কে তোয়াক্কা না করে আওয়ামী লীগের একটি গ্রুপের সভাপতির দাবিদার সাদেক খান শিব্বির আহমেদকে সিনিয়র সহ-সভাপতির পদ দিয়ে নানা বিতর্কের জন্ম দিয়েছেন। 

দৈনিক সরেজমিন বার্তায় প্রকাশিত প্রতিবেদন সম্পর্কে শিব্বির আহমেদের কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি মার্কিন সংবাদমাধ্যম বাংলা প্রেস'কে জানান, খবরটি যে কেউ বিশেষ করে যে কোন সাংবাদিক দেখলেই বুঝবার কথা যে, এটি একটি ভুয়া, বানানো, সাজানো গুজব যা উদ্দেশ্যমুলক ভাবেই করা হয়েছে। সংবাদটির কোন বস্তুনিষ্ঠতা ও সত্যতা নেই।

১৯৯৫ সাল থেকে তিনি যুক্তরাষ্ট্রে বসবাস করছেন। খোঁজ নিলেই জানা যাবে যে, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগসহ সকল মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের সবাই তাকে একজন একনিষ্ঠ আওয়ামী লীগার বা মুক্তিযুদ্ধের সৈনিক হিসেবেই জানেন।

১৯৯৫-এর পূর্বে তিনি জন্মস্থান লাকসামে বসবাস করেছেন। পারিবারিকভাবেই আওয়ামী পরিবারে তার জন্ম এবং জন্ম থেকেই আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে জড়িত ছিলেন। লাকসামে খোঁজ নিলেও একই তথ্য জানা যাবে বলে উল্লেখ করেন তিনি।

তিনি বলেন, যে পত্রিকায় সংবাদটি ছাপা হয়েছে, তারা তাকে জানবার কথা নয়, চিনবারও কথা নয়। তিনি নিজেও একজন সংবাদকর্মী ও লেখক। সংবাদকর্মী হিসাবে তার রয়েছে একটি বর্ণাঢ্য জীবন। যারা তাকে জানেন বা চিনেন সে ধরনের কোনো পত্রিকা বা সংবাদকর্মী তার নামে এই ধরনের ভুঁয়া বানোয়াট গুজব এবং উদ্দেশ্যমূলক সংবাদ প্রকাশ করবে না এই বিশ্বাস তার রয়েছে বলে জানান শিব্বির।



মন্তব্য করুন

সর্বশেষ খবর
এই বিভাগের আর খবর