রবিবার, ৫ ডিসেম্বর ২০২১ | ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

নিজের যেই ৬ কথা কাউকে বলবেন না

অনলাইন ডেস্ক
২ নভেম্বর ২০২১ ১৮:৫৭ |আপডেট : ৩ নভেম্বর ২০২১ ০০:১৭
প্রতীকী ছবি
প্রতীকী ছবি

অনেকেই মনে করেন যারা চারপাশে আছে, তারা বুঝি আজীবন এভাবেই থাকবে। এই ভাবনা বেশিরভাগ সময়েই ভুল প্রমাণিত হয়। কারণ জীবনের প্রবাহ সব সময় একই গতিতে, একই দিকে চলে না।

তাইতো চলার পথে যোগ হয় নতুন সব মুখ, আবার তারা হারিয়েও যায়। কত ভালোলাগা-মন্দলাগার সাক্ষী হয়ে থাকে সেসব মানুষ। কত ভাব বিনিময়, মন খুলে কত মনের কথা বলা।

সুন্দর সম্পর্ক গড়ে তোলা অবশ্যই প্রশংসনীয় কাজ। সেই সম্পর্ক ধরে রাখতে পারাও কম কথা নয়। কিন্তু সেটি যতই সুন্দর সম্পর্ক হোক না কেন, নিজের সব কথা বলে দেওয়াটা কখনো বুদ্ধিমানের কাজ নয়। কিছু কথা নিজের কাছে গোপন রাখাই শ্রেয়। আজ হয়তো মনে হতে পারে, আপনার কথাগুলো তার কাছে নিরাপদ। কিন্তু সম্পর্কটি কতদিন সুন্দরভাবে বজায় থাকবে, কে জানে! এরপর যে আপনার সেসব দুর্বল দিকগুলোই তাদের আলোচনার বিষয়বস্তু হবে না, তা কে বলতে পারে! কোন কথাগুলো অন্যকে বলা যাবে না, তা জেনে নিন-

নিজের পরিবার সম্পর্কে

অনেকে আছেন যারা বাইরের লোকের কাছে নিজের পরিবারের সব কথা বলে দেন বা পরিবারের বিভিন্ন সদস্যের নামে সমালোচনা করেন। পরিবারের কাছ থেকে আপনার যতই তিক্ত অভিজ্ঞতা হোক না কেন, তা বাইরের মানুষের কাছে বলতে যাবেন না। মনের কথা বলার মাধ্যমে আপনি হয়তো সাময়িক চাপমুক্ত অনুভব করতে পারেন, কিন্তু এসব কথাই পরবর্তীতে তারা অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করতে পারে। তাই পরিবারের কারো সঙ্গে কোনো ধরনের সমস্যা হলে চেষ্টা করুন নিজেরাই সেটি সমাধান করার।

স্বামী-স্ত্রীর কথা

ঝগড়া ছাড়া দম্পতি হয় না। সম্পর্কটাই এমন যে প্রায় সব বিষয়েই দুজনের মতামতের দরকার পড়ে। তখন একজনের সঙ্গে অপরজনের মতে না মিললে ঝগড়ার সূত্রপাত ঘটতে পারে। এই স্বাভাবিক ঘটনাকে বড় করে দেখবেন না। বাইরের কারও সঙ্গে স্বামী বা স্ত্রীকে নিয়ে আলোচনা করতে যাবেন না। যদি বলতেই হয় তবে সঙ্গীর ইতিবাচক দিকগুলো নিয়ে কথা বলুন। ভুলেও নিন্দা করতে যাবেন না। 

বেতনের কথা

অনেকে আছেন যারা নিজের উপার্জন সম্পর্কে দশজনকে বলে বেড়াতে পছন্দ করেন। কিন্তু এটি ভুল কাজ। নিজের আয় সম্পর্কে বাইরের কাউকে বলতে যাবেন না। কেউ ‍জিজ্ঞেস করলেও তাকে ভালোভাবে বুঝিয়ে বলুন যে এটি জানতে চাওয়া অসৌজন্যতা। নিজের আর্থিক সমস্যা থাকলেও তা অন্যের সঙ্গে আলোচনা করতে যাবেন না। নিজের বুদ্ধি দিয়েই সামলে নেওয়ার চেষ্টা করুন। 

নিজের দুর্বলতার কথা

আমরা কেউই স্বয়ংসম্পূর্ণ নই। কোথাও না কোথাও আমাদের ঘাটতি থেকে যায়, কমতি থেকে যায়। নিজের কোনো দুর্বলতা থাকতেই পারে। তাই বলে সেটি জনে জনে বলে বেড়াবেন না। এতে সামনাসামনি সমবেদনা দেখালেও অন্যের কাছে তারা আপনার দুর্বলতা নিয়ে হাসাহাসি করতে পারে। নিজের যদি কোনো ভুল থাকে তবে সেজন্য ক্ষমা চেয়ে নিতে পারেন। কিন্তু নিজের দুর্বলতার কথা প্রকাশ করে নিজেকে হাসির পাত্র বানাতে যাবেন না।

অন্যের প্রতি দুর্বলতা

অন্যের অনেককিছু আপনার ভালোলাগতে পারে, কারও প্রতি আপনি দুর্বলতা অনুভব করতেই পারেন। তবে সেটি হুটহাট প্রকাশ করা থেকে বিরত থাকুন। কারণ এতে সে আপনাকে ব্যক্তিত্বহীন ভাবতে পারে। আপনার অতিরিক্ত গুরুত্ব দেওয়াটাকেও মানুষ দুর্বলতা বলে ভাবতে পারে। 

বিশেষ কোনো স্বপ্ন

স্বপ্ন বা লক্ষ্য না থাকলে জীবনে এগিয়ে যাওয়া সম্ভব হয় না। আপনার জীবনেও হয়তো কোনো লক্ষ্য কিংবা স্বপ্ন আছে। সেই স্বপ্ন পূরণের লক্ষ্যে নিজের মতো করে এগিয়ে যান। তবে নিজের বিশেষ স্বপ্নের কথা অন্যের কাছে বলতে যাবেন না। কারণ সবাই সেটি ইতিবাচকভাবে গ্রহণ নাও করতে পারে।



মন্তব্য করুন