বৃহস্পতিবার, ২৭ জানুয়ারি ২০২২ | ১৩ মাঘ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

টিএসসিতে কাওয়ালি আসরে হামলার প্রতিবাদে কাওয়ালি- প্রতিবাদী গান

নিজস্ব প্রতিবেদক
১৩ জানুয়ারি ২০২২ ২১:৩৬ |আপডেট : ১৩ জানুয়ারি ২০২২ ২৩:২৮
কাওয়ালি আসরে হামলার প্রতিবাদে কাওয়ালি ও প্রতিবাদী গানের আয়োজন করা হয়েছে
কাওয়ালি আসরে হামলার প্রতিবাদে কাওয়ালি ও প্রতিবাদী গানের আয়োজন করা হয়েছে

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র শিক্ষক কেন্দ্রের (টিএসসি) সামনে কাওয়ালি আসরে হামলার প্রতিবাদে কাওয়ালি ও প্রতিবাদী গানের আয়োজন করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৩ জানুয়ারি) সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় সিলসিলা ব্যান্ডের আয়োজনে কাওয়ালি ও প্রতিবাদী গানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানের শুরুতে বক্তারা বলেন, গতকালের হামলার প্রতিবাদে আজ কাওয়ালি গান গাইবেন তারা।

অনুষ্ঠান শেষে সবাইকে ধন্যবাদ জানান সিলসিলা ব্যান্ডের প্রতিষ্ঠাতা লুৎফর রহমান। সাংবাদিকদের তিনি বলেন, কাওয়ালি ঐতিহ্যবাহী গান। গতকালের অনুষ্ঠানের জন্য আমরা দীর্ঘদিন ধরে পরিশ্রম করেছি। শিক্ষার্থীদের কাছ থেকেও আমরা ব্যাপক সাড়া পেয়েছিলাম। কিন্তু হামলার কারণে আমাদের অনুষ্ঠান পণ্ড হয়েছে। দর্শক ও আয়োজকদের অনেকে আহত হয়েছেন। হামলার প্রতিবাদে আমরা আজকে গান করেছি। আমরা হামলাকারীদের জানিয়ে দিতে চেয়েছি যে, হামলা করে সংস্কৃতির যাত্রা, সুন্দরের যাত্রা থামানো যায় না। আমরা আছি।

তিনি আরও বলেন আজকে সাধারণ শিক্ষার্থীদের ব্যাপক সাড়া পেয়েছি। আমাদের কোনো সাউন্ড সিস্টেম ছিল না, কোনো ইনস্ট্রুমেন্ট ছিল না। খালি গলায় আমরা গান করেছি। আমাদের সঙ্গে দর্শকরা সবাই গলা মিলিয়েছে। আমরা এ ধরনের অনুষ্ঠান আরও করব।




গতকালের হামলার ঘটনায় কোনো আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরের কাছে আমরা অভিযোগ করেছি। প্রক্টরের দায়িত্ব এটা তদন্ত করা। এর আগে বিশ্ববিদ্যালয়ে যত হামলার ঘটনা ঘটেছে সেসব ক্ষেত্রেও প্রশাসন কোনো দায়িত্ব পালন করেনি। তাই প্রক্টর এই হামলার পরিপ্রেক্ষিতে কোনও ব্যবস্থা নেবে এ নিয়ে আমরা আশাবাদী না।

প্রসঙ্গত, গতকাল টিএসসির পায়রা চত্বরে কাওয়ালি গানের আসরে হামলার ঘটনা ঘটে। ছাত্রলীগের কর্মীরা অনুষ্ঠান শুরুর আগেই মঞ্চে হামলা, চেয়ার ভাঙচুর ও কয়েকজন শিক্ষার্থীকে মারধর করেন বলে অভিযোগ করেন আয়োজক ও প্রত্যক্ষদর্শীরা। তবে হামলার বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন দাবি করেন, এ হামলায় ছাত্রলীগের কেউ জড়িত নয়।



মন্তব্য করুন