রবিবার, ২৯ মে ২০২২ | ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

বিটকয়েনের মাধ্যমে দেশে চলছে ৬ ধরনের অপরাধ

নিজস্ব প্রতিবেদক
১৪ মে ২০২২ ০০:০৬ |আপডেট : ১৪ মে ২০২২ ২০:৫১
বিটকয়েন
বিটকয়েন

অবৈধ অস্ত্র ও মাদক কেনাবেচা, বিদেশে অর্থ ও মানবপাচার, জঙ্গিদের অর্থায়ন এবং অনলাইন জুয়া— এই ছয় ধরনের অপরাধে ব্যবহৃত হচ্ছে অবৈধ ভার্চুয়াল মুদ্রা। বিশেষ করে বিটকয়েনের মাধ্যমে এসব অপরাধ সংঘটিত হলেও পর্যাপ্ত প্রশিক্ষণ না থাকায় অপরাধের সঙ্গে জড়িতদের আইনের আওতায় আনতে পারছে না আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

এ অবস্থায় বিটকয়েনের ব্যবহারকারী ও ব্যবসায়ীদের আইনের আওতায় আনতে নির্দেশনার পাশাপাশি বিটকয়েনের প্রযুক্তি সম্পর্কিত আধুনিক তথ্য ও জ্ঞান লাভে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী, আর্থিক প্রতিষ্ঠান ও সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়সহ কর্মকর্তা-কর্মচারীদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করতে বলা হয়েছে। বিশেষ করে পুলিশের সাইবার ইউনিট এবং গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যদের প্রশিক্ষণ, আধুনিক যন্ত্রপাতি ও সফটওয়্যার সংগ্রহের মাধ্যমে প্রযুক্তিগত দক্ষতা অর্জনের নির্দেশনা দেওয়া হয়।


সম্প্রতি একটি গোয়েন্দা সংস্থার প্রতিবেদনের ভিত্তিতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের রাজনৈতিক অধিশাখা-২ থেকে এ সংক্রান্ত একটি চিঠি পাঠানো হয়েছে পুলিশ সদর দফতরে। পুলিশের অতিরিক্ত উপ-মহাপরিদর্শক কাজী জিয়া উদ্দিনের সই করা সেই চিঠির আলোকে কার্যকর ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য পুলিশের বিভিন্ন ইউনিটে নির্দেশনা পাঠানো  হয়েছে। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সংশ্লিষ্টরা জানান, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির অভাবনীয় অগ্রগতির কারণে বিশ্বব্যাপী কাগুজে মুদ্রার পাশাপাশি ডিজিটাল মুদ্রার সূচনা ও ব্যবহার শুরু হয়েছে। বিশ্বের সর্বপ্রথম ডিজিটাল বা ভার্চুয়াল মুদ্রা হলো বিটকয়েন। ২০০৮ সাল থেকে চালুর পর থেকেই বাংলাদেশে অবৈধ এই মুদ্রার ব্যবহার শুরু হয়েছে। বৈধ পণ্য কেনাবেচা ছাড়াও বিটকয়েনের মাধ্যমে মাদক, অস্ত্র, চোরাচালান, মানবপাচার, অর্থপাচারসহ নানা অবৈধ পণ্য ও সেবা কেনাবেচায় বিট কয়েন ব্যবহার হচ্ছে। ব্যবহারকারীদের শনাক্ত এবং তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ দুরূহ হওয়ার কারণে সম্প্রতি বাংলাদেশে এর ব্যবহার আশঙ্কাজনক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। বিশেষ করে মাদক, অর্থপাচার, অনলাইন ভিডিও গেমসের পেমেন্ট, অনলাইন জুয়া, মানবপাচার ও জঙ্গি কর্মকাণ্ডে অর্থায়নে বিটকয়েন বেশি ব্যবহার হচ্ছে। এর মাধ্যমে বিপুল পরিমাণ অর্থ বিদেশে পাচারও হয়ে যাচ্ছে বলে গোয়েন্দা সংস্থার ওই প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।



মন্তব্য করুন

সর্বশেষ খবর
এই বিভাগের আর খবর