শুক্রবার, ১৯ আগস্ট ২০২২ | ৪ ভাদ্র ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

শিক্ষক নির্যাতন ও হত্যায় জড়িতদের শাস্তি দাবি

রাবি প্রতিনিধি
৫ জুলাই ২০২২ ১৯:১০ |আপডেট : ৬ জুলাই ২০২২ ১১:৫৮
রাবিতে মানববন্ধন
রাবিতে মানববন্ধন

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়সহ দেশব্যাপী শিক্ষক নির্যাতন ও হত্যার প্রতিবাদ ও জড়িতদের শাস্তির দাবি জানিয়েছে রাবি জাতীয়তাবাদী শিক্ষক ফোরাম। মঙ্গলবার (৫ জুলাই) দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্যারিস রোডে আয়োজিত এক মানববন্ধন থেকে তারা এ দাবি জানান।

মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি অধ্যাপক এফ নজরুল ইসলাম। কর্মসূচি শেষে তারা শিক্ষক লাঞ্ছনা ও হলে সিট বাণিজ্য বন্ধের দাবিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য বরাবর একটি স্মারকলিপি প্রদান করেন।

কর্মসূচিতে কলা অনুষদের ডিন অধ্যাপক ফজলুল হক বলেন, কোন অপরাধীকে সংশোধিত করতে হলে তার শরীরে আঘাত করা হয়। কিন্তু তাকে হত্যা করতে হলে তার মাথায় আঘাত করতে হয়। জাতিকে শিক্ষিত হিসেবে গড়ে তুলতে কারিগর হিসেবে কাজ করেন শিক্ষকরা। আজ তাদের মাথায় আঘাত করা হচ্ছে। রাষ্ট্রযন্ত্র কোন না কোনভাবে শিক্ষা ব্যবস্থাকে ধ্বংস করতে চায়। ছাত্র শিক্ষকের মধ্যে একটা বিভেদ সৃষ্টি করতে চায়। তাদের আসল উদ্দেশ্য এ জাতির মেরুদণ্ড ভেঙে দেওয়া। আমরা শিক্ষক নির্যাতন ও হত্যার ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ ও এর সাথে জড়িতদের শাস্তির দাবি জানাচ্ছি। 

সংগঠনের সাবেক সভাপতি অধ্যাপক হাবিবুর রহমান বলেন, গত কিছুদিন আগে আমাদের আইন বিভাগের শিক্ষক অধ্যাপক আসমা সিদ্দীকাকে লাঞ্ছিত করা হয়েছে। এর আগে একজন শিক্ষককে হত্যা করা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হলগুলোতে শিক্ষার্থীদেরকে সিট থেকে নামিয়ে দেওয়া হচ্ছে কিন্তু কিছুই হচ্ছে না। নির্বাচনে দিনের ভোট আগের রাতে হয়ে যাচ্ছে। এক রাতে চিঠি দিয়ে ১৩৬ জন মানুষকে চাকরি দেওয়া হলো। এটা প্রহসন। আর এইসব প্রহসনের জন্যই আমাদের সমাজটা পঁচে গেছে। ফলে ছাত্ররা শিক্ষকের ওপর চড়াও হচ্ছে। 

রাবি শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক কুতরত-ই-জাহান বলেন, পুরো দেশে যে ভোট চুরি, পুকুর চুরি, টাকা পাচারের ঘটনা হচ্ছে, শিক্ষক নির্যাতনের ঘটনা হচ্ছে তার প্রতিফলন। একটা দেশে যখন সুষ্ঠু গণতন্ত্র থাকে না, তখন দেশে এরকম অরাজকতা হওয়াই স্বাভাবিক। দেশে গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনতে হবে। আমরা ছাত্রদের নৈতিক শিক্ষা দিতে পারি না। কারণ দেশ দাঁড়িয়ে আছে অনৈতিক ব্যবস্থার উপর। আমাদের ভোটাধিকার না দিলে দেশের অবস্থা কোনদিনই ঠিক হবে না।

মানববন্ধনে জাতীয়তাবাদী শিক্ষক ফোরামের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মাসুদুল হাসান খান মুক্তার সঞ্চালনায় অন্যদের মধ্যে কৃষি অনুষদের ডিন অধ্যাপক আব্দুল আলীম, সাবেক সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মামুনুর রশীদ, সাবেক সহ-সভাপতি গোলাম সাদিক, অধ্যাপক সারোয়ার জাহান লিটন প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। এসময় প্রায় ৩০ জন শিক্ষক উপস্থিত ছিলেন।



মন্তব্য করুন