শুক্রবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২ | ১৫ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

৫০ কেজি ওজনের কাঁঠাল!

নান্দাইল প্রতিনিধি
১৯ আগস্ট ২০২২ ১৭:২৬ |আপডেট : ২০ আগস্ট ২০২২ ০৯:১৩
৫০ কেজি ওজনের কাঁঠাল
৫০ কেজি ওজনের কাঁঠাল

ময়মনসিংহের নান্দাইলে চন্ডিপাশা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের পাশে আলী আফজাল খানের বাসার কাঁঠাল গাছে ৫০ কেজি ওজনের একটি কাঁঠাল ধরেছে। কাঁঠালটি দেখতে উৎসুক মানুষ ভিড় করছে। অনেকে কাঁঠালের ছবি তুলেছেন। কেউ কেউ আবার কাঁঠালের সঙ্গে সেলফি তুলেছেন।

জানা যায়, গত বুধবার(১৭ আগস্ট) গাছ থেকে কাঁঠালটি কাটার সময় আকৃতির চেয়ে ওজন বেশি মনে হওয়ায় তা দাঁড়িপাল্লায় ওজন করে দেখা গেছে কাঠালটির ওজন ৫০ কেজির উপরে। পাকার জন্য কাঁঠালটি রেখে দিয়েছেন বাসায়।

কাঁঠালের মালিক অবসরপ্রাপ্ত কলেজ শিক্ষক শিক্ষাবিদ আলী আফজাল খান জানান, তার জীবনে এতো বড় এবং এতো বেশি ওজনের কাঁঠাল তিনি দেখেননি। এটাকে তিনি আল্লাহর অপূর্ব নিদর্শন মনে করেন। তিনি নিয়ত করেছেন কাঁঠালটি পাকলে আত্মীয়স্বজন এবং প্রতিবেশীদের খাওয়াবেন। 

আলী আফজাল খান জানান, গত কয়েক বছর ধরে গাছটিতে কাঁঠাল ধরছে। তবে সেগুলো ছিল স্বাভাবিক সাইজের। এবার গাছে ৮টি কাঁঠাল ধরেছে। সবগুলি কাঁঠালই বড় আকৃতির হয়েছে।তবে দুটি কাঁঠাল খুবই বড় আকৃতির হয়েছে। ফলে তা গাছ থেকে পেড়ে ওজন করে দেখা যায় এটি ৫০ কেজির উপরে। কাঁঠালটি দেখতে গত কয়েকদিন ধরে তার বাড়িতে অনেক কৌতুহলী মানুষ ভিড় করছে বলে তিনি জানান।

আলী আফজাল খান স্মৃতিচারণ করে বলেন, আমি ১৯৭৭ সনে স্থানীয় ঈমাম হোসেন উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক থাকাকালীন ওই বিদ্যালয়ের দপ্তরী আব্দুল করিম বাসায় এসে একটি কাঁঠালের চারা রোপন করেছিলেন। সেই ছোট কাঁঠালের চারাটি আজ পরিপূর্ণ গাছ। সেই গাছেই আজ ৫০ কেজি ওজনের কাঁঠাল ধরেছে।

বৃহস্পতিবার (১৮ আগস্ট) রাতে 'প্রেসক্লাব নান্দাইল'-এর সাধারণ সম্পাদক শামছ- ই-তাবরীজ রায়হান তার ফেইসবুক আইডিতে আলী আফজাল খানসহ কাঁঠালের ছবি পোস্ট করেন। তিনি লিখেন, শ্রদ্ধেয় আলী আফজাল খান স্যারের বাসার গাছের কাঁঠাল (৫০ কেজি ওজন)। খাওয়ার জন্য শুভানুধ্যায়ীদের নিমন্ত্রণ দিয়েছেন।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এমনি পোস্টে ব্যাপক সাড়া পড়ে। উপজেলা সমাজসেবা অফিসার ইনসান আলী লিখেন- কতজন নিমন্ত্রিত? গোলাপ মণ্ডল নামে একজন লিখেন -ওরে বাবা! অসময়ে এত বড় কাঠাল? ধিমান সরকার লিখেন -না খেয়ে জাদুঘরে দিয়ে দেন। একদিন নিলামে  উঠবে।

কাঁঠাল দেখতে উৎসুকদের মধ্যে সাংবাদিক জালাল মণ্ডল এবং গোলাম মোস্তফা জানান, এত বড় কাঁঠাল এর আগে দেখিনি।

আলী আফজাল খানের বড় মেয়ে স্থানীয় জহুরা খাতুন উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা মার্জিয়া রেবেকা সুলতানা  বলেন, এই কাঁঠাল দেখতে বাসায প্রতিদিন মানুষ ভীড় করছেন। ছবি তুলেছেন। এত বড় কাঁঠাল দেখে মানুষ বেশ অবাক হয়েছেন।

উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ মোহাম্মদ আনিসুজ্জামান বলেন, কাঁঠাল একটি যৌগিক ফল। কাঁঠালের ভালো জাত ও উর্ব্বর মাটির কারণে আকার অনেক সময় বড় হয়ে থাকে। নান্দাইলের মাটি উর্বরা হওয়ায় প্রচুর কাঁঠাল ফলে।



মন্তব্য করুন