সোমবার, ৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ | ২৪ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

লঙ্কা প্রিমিয়ার লিগের পর্দা উঠছে আজ

স্পোর্টস ডেস্ক
৬ ডিসেম্বর ২০২২ ২১:০১ |আপডেট : ৬ ডিসেম্বর ২০২২ ২৩:০০
লঙ্কা প্রিমিয়ার লিগ
লঙ্কা প্রিমিয়ার লিগ

মঞ্চ প্রস্তুত, খেলোয়াড়রাও তৈরি লড়াইয়ে উপনীত হতে। হাম্বানটোটায় দিনে দুই ম্যাচ দিয়ে ৬ ডিসেম্বর (মঙ্গলবার) শুরু হচ্ছে লঙ্কা প্রিমিয়ার লিগ। উদ্বোধনী ম্যাচে বিকেল ৩টায় মুখোমুখি হবে গল গ্ল্যাডিয়েটরস ও জ্যাফনা কিংস। সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় লড়বে কলম্বো স্টারস ও ক্যান্ডি ফ্যালকনস।

হাম্বানটোটা, ক্যান্ডি ও কলম্বো ঘুরে হবে টুর্নামেন্টের প্রথম রাউন্ডের ২০ ম্যাচ। ফাইনাল রাউন্ডের সবগুলো ম্যাচ হবে কলম্বোয়। কোনো বিরতি ছাড়া টানা ৩ দিনে হবে এ চার ম্যাচ। আগামী ২১ ডিসেম্বর মাঠে গড়াবে এলিমিনেটর ও প্রথম কোয়ালিফায়ার ম্যাচ। পরদিন হবে দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার। শিরোপা নির্ধারণী ফাইনাল ম্যাচ হবে ২৩ ডিসেম্বর।

শ্রীলঙ্কার ঘরোয়া ক্রিকেটের সবচেয়ে জমজমাট এ আসরে সবমিলিয়ে ২৪টি ম্যাচ খেলা হবে। যেখানে স্থানীয় খেলোয়াড়দের পাশাপাশি থাকবে বিশ্বমানের বিদেশি খেলোয়াড়দের উপস্থিতি। অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউজ, থিসারা পেরেরা, ভানিন্দু হাসারাঙ্গাদের সঙ্গে থাকবেন ইয়ানেমান মালান, ডোয়াইন প্রিটোরিয়াস, শোয়েব মালিকের মতো বিদেশি তারকারা।

লঙ্কা প্রিমিয়ার লিগের প্রচারকার্য পরিচালনা কোম্পানি আইপিজির প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী অনিল মোহন বলেছেন, শ্রীলঙ্কায় ক্রিকেটের প্রতি মানুষের বিপুল আগ্রহ। যে কারণে গত বছর কোভিড-১৯ এর বাধার পরেও আমরা এবার টুর্নামেন্টের তৃতীয় আসর আয়োজন করতে পারছি। এ বছর অনেক ভোগান্তির মধ্য দিয়ে গেছে এই দেশ। তবে ক্রিকেট সবসময় তাদের মুখে হাসি ফোটায় এবং যে কোনো কিছুর বিরুদ্ধে লড়াই করার অনুপ্রেরণা জোগায়। শ্রীলঙ্কার মানুষের মুখে হাসি ফোটানোয় অবদান রাখতে পেরে আমরা আনন্দিত। এই লিগের মাধ্যমে শ্রীলঙ্কার অনেক প্রতিভা বেরিয়ে আসবে। আমি সত্যিই অনেক রোমাঞ্চিত।

অধিনায়ক থিসারা পেরেরা ছাড়াও শোয়েব মালিক, জিমি নিশামদের মতো খেলোয়াড় রয়েছে জ্যাফনা কিংস দলে। তাই শিরোপা জেতার ব্যাপারে পূর্ণ আত্মবিশ্বাস রয়েছে থিসারার।

তিনি বলেছেন, আপনি যখনই কোনো বড় টুর্নামেন্ট খেলবেন, সবসময় চেষ্টা থাকবে ফাইনাল খেলার এবং পরে অতি অবশ্যই শিরোপা জেতার। ধনাঞ্জয়া ডি সিলভা, মালিক, নিশামদের নিয়ে আমাদের খুব ভালো অভিজ্ঞ দল রয়েছে। আমরা গত আসরের ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে চাই। গল গ্ল্যাডিয়েটরস খুব ভালো দল। তবে প্রথম জয় পাওয়ার জন্য আমাদের পূর্ণ সামর্থ্য রয়েছে। আমরা জয় দিয়ে ইতিবাচকভাবে টুর্নামেন্ট শুরুর অপেক্ষায় রয়েছি।

 

গত দুই আসরের ফাইনাল খেলেও শিরোপা জিততে পারেনি গল গ্ল্যাডিয়েটরস। এবার তা বদলাতে চান অধিনায়ক কুশল মেন্ডিস।

তিনি বলেছেন, আমরা টুর্নামেন্টের তৃতীয় আসরে ইতিবাচক শুরু করতে চাই এবং শেষে অবশ্যই ট্রফি জিততে চাই। কুশল পেরেরা, ইমাদ ওয়াসিম, নুয়ান প্রদীপদের মতো অভিজ্ঞ খেলোয়াড়দের নিয়ে আমাদের ভারসাম্যপূর্ণ দল রয়েছে। আমরা গত আসরের পারফরম্যান্সের পুনরাবৃত্তি করার ব্যাপারে আশাবাদী। এবার শিরোপা জিততে চাই। জ্যাফনা কিংস বর্তমান চ্যাম্পিয়ন। তাই তাদের বিপক্ষে সেরা খেলাটাই খেলতে হবে এবং ইতিবাচকভাবে টুর্নামেন্টের শুরু করতে হবে।

দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে লড়বে কলম্বো স্টারস ও ক্যান্ডি ফ্যালকনস। ভানিন্দু হাসারাঙ্গার দলের বিপক্ষে জয় দিয়ে শুরু করতে চান কলম্বোর অধিনায়ক ম্যাথিউজ। তার দলে খেলবেন রবি বোপারা, দীনেশ চান্দিমাল, নিরোশান ডিকভেলার মতো বড় ক্রিকেটাররা। গত আসরে ৯ ম্যাচে দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ২৭৭ রান করেছিলেন চান্দিমাল।

 অধিনায়ক ম্যাথিউজ বলেছেন, আমাদের স্কোয়াডে গভীরতা আছে এবং আমাদের মূল লক্ষ্য হলো শেষ পর্যন্ত খেলে চ্যাম্পিয়ন হওয়া। আমাদের দলে অনেক তারকা খেলোয়াড় আছে। আমরা তাদের দিকে তাকিয়ে থাকব। গত আসরে চান্দিমাল সেরা পারফর্মার ছিল। আশা করি এবারও ভালো খেলে দলকে শিরোপার কাছে নিয়ে যাবে। টুর্নামেন্ট জেতার জন্য ইতিবাচক শুরু গুরুত্বপূর্ণ। আমাদের দলে সেটি করার যথেষ্ট শক্তিমত্তা রয়েছে। আশা করি ট্রফি ঘরে তুলতে পারব।

ভানিন্দু হাসারাঙ্গার অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে বাজিমাত করতে চায় ক্যান্ডি ফ্যালকনস। অধিনায়ক হাসারাঙ্গাও ভালো শুরুর মাধ্যমে টুর্নামেন্ট জেতার ব্যাপারে আশাবাদী।

 তিনি বলেছেন, আমরা আগে প্রথম ম্যাচের দিকে মনোযোগ দিচ্ছি। তবে আমাদের শেষ লক্ষ্য হলো ট্রফি জেতা। আমরা ইতিবাচক ফলের অপেক্ষায় আছি। যা আমাদের সামনে এগিয়ে যেতে সাহায্য করবে। ফাবিয়ান অ্যালেন, কার্লোস ব্রাথওয়েটের মতো বড় ম্যাচের খেলোয়াড় আছে দলে। যা আত্মবিশ্বাস অনেক বাড়িয়ে দেয়। আমাদের পরিকল্পনা হলো নিজেদের ওপর বাড়তি চাপ না নেওয়া এবং একসঙ্গে একটি ম্যাচের ব্যাপারেই চিন্তা করা। আমরা শিরোপায় চোখ রেখেই এগোবো।



মন্তব্য করুন