রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪ | ২ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মিথ্যা ভিত্তিহীন মানববন্ধন ও সংবাদ প্রচারের প্রতিবাদ

রাজবাড়ী প্রতিনিধি
৩ জুন ২০২৩ ১৫:৫৪ |আপডেট : ৪ জুন ২০২৩ ০৭:২৮
মিথ্যা ভিত্তিহীন মানববন্ধন ও সংবাদ প্রচারের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন
মিথ্যা ভিত্তিহীন মানববন্ধন ও সংবাদ প্রচারের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

রাজবাড়ীর কালুখালী উপজেলার কালিকাপুর ইউনিয়নে নিজ পরিবারের বিরুদ্ধে হাফিজুর গং এর করা মিথ্যা ভিত্তিহীন মানববন্ধন ও সংবাদ প্রচারের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেছে ভুক্তভোগী পরিবার।

শনিবার ইউপির কালিকাপুর গ্রামের মৃত মনোয়ার হোসেনের নিজ বাড়িতে এ সংবাদ সম্মেলন করেন হাফিজুরের ছোট চার ভাই, মা-বোনসহ পরিবারের লোকজন।

সংবাদ সম্মেলনে মৃত মনোয়ার হোসেনের মেঝ ছেলে চিকিৎসক মফিজুর রহমান বলেন, আমাদের বড় ভাই হাফিজুর রহমানকে আমাদের দাদা সোয়া পাঁচ পাখি জমি দেন। সেই জমি আমাদের মা সহ আমরা চার ভাই বড় ভাই হাফিজুর রহমানের কাছ থেকে কিনে নেই। তবে রেজিষ্ট্রি করা হয়নি। বেশ কিছুদিন আগে মা ও আমরা বড় ভাইকে জমি রেজিষ্ট্রি করে দিতে বললে সে নানা তালবাহানা করতে থাকে। এবং সেই জমি গোপনে অন্য লোকের কাছে বিক্রি দেয়। বিষয়টি জানাজানি হবার পর আমরা এর প্রতিবাদ করলে পার্শ্ববর্তী কিছু মানুষের যোগসাজশে আমাদেরকে মেরে ফেলার হুমকি দেয়। তার এ সকল কর্মকাণ্ডের কারণে আমরা তাদের বিরুদ্ধে মামলা করি। পরে সে তাকে মেরে বাড়ি থেকে বের করে দেয়াসহ নানা ভিত্তিহীন অভিযোগে গত ২ মে মানববন্ধন করে আমাদের উপর মিথ্যা দোষ চাপায়। সে আমাদের বড় ভাই, অনেক আগেই সে আমাদের ছেড়ে অন্যত্র চলে যায়। আমরা তাকে তাড়িয়ে দেইনি। মারধর করার তো প্রশ্নই ওঠে না। সেই আমাদের উপর অবিচার করছে এবং মিথ্যা দোষারোপ করছে। একই সাথে সে নিজে এবং তার সহযোগিদের দিয়ে আমাদেরকে নানাভাবে জীবন-নাশের হুমকি ধামকি প্রদান করে আসছে। আমরা নিরাপত্বাহীনতায় ভুগছি।

হাফিজুরের বৃদ্ধ মা বলেন, হাফিজুর অন্যায় ভাবে আমার এবং আমার অন্য ছেলেদের জমি আত্বসাত করেছে। আমাকেও আঘাত করেছে। অথচ ওই মানববন্ধন করে আমাদের নামে মিথ্যা অভিযোগ করেছে। হাফিজুরের বোন বলেন সে ও তার সহযোগীরা আমাকে মেরে আমার দাঁত ভেঙে দিয়েছে।

এ ঘটনায় পরিবারটি শনিবার এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে হাফিজুর গংদের হাত থেকে পরিত্রাণ পেতে ও নিজেদের কেনা জমি ফেরত পাওয়াসহ সুষ্ঠু বিচারের দাবিতে প্রশাসনের কাছে আকুতি জানান।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন ভুক্তভোগী মফিজুর রহমান, শহিদুল ইসলাম, মাসুদ হাসান খোকন, মো. রুবেল মন্ডল, মেয়ে চম্পা, স্ত্রী মরিয়ম বেগমসহ অন্যান্য আত্মীয় স্বজন।



মন্তব্য করুন