রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪ | ২ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের সভায় কী হয়?

অনলাইন ডেস্ক
১৮ সেপ্টেম্বর ২০২৩ ০৬:৫৭ |আপডেট : ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২৩ ১২:০১
জাতিসংঘ
জাতিসংঘ

প্রতি বছর সেপ্টেম্বরে সারা বিশ্বের সব দেশের নেতারা বৈঠকে বসেন এবং বিভিন্ন বৈশ্বিক সমস্যা নিয়ে আলোচনা করেন নিউ ইয়র্কের জাতিসংঘ সদর দপ্তরে। একই মঞ্চে বিশ্বের বিভিন্ন রাষ্ট্রের নেতা ও সরকারের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের একে অপরের সঙ্গে সাক্ষাত হয় বলে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের এই সভাকে ‘কূটনৈতিক স্পিড ডেটিং’ ইভেন্ট হিসেবে আখ্যা দিয়ে থাকেন অনেক কূটনীতিক। অন্যান্যবারের মতো এবারও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭৮তম অধিবেশনে যোগ দিচ্ছেন।

এবারের সাধারণ পরিষদের সভায় প্রধান আলোচনার বিষয় থাকছে আন্তর্জাতিক উন্নয়ন ও জলবায়ু পরিবর্তনের ইস্যুটি। এর পাশাপাশি প্রাধান্য পাবে ইউক্রেন যুদ্ধও।

কিন্তু জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে কেন এসব বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন বিশ্বের বিভিন্ন দেশের নেতারা? সাধারণ পরিষদের গুরুত্ব কী? এমন নানা প্রশ্ন ঘুরপাক খায় মানুষের মনে।

জাতিসংঘ ও সাধারণ পরিষদ

সহজভাবে বললে, জাতিসংঘের মূল লক্ষ্য পারস্পারিক সহায়তার মাধ্যমে সার্বিক উন্নয়ন ও শান্তিপূর্ণ সহাবস্থান নিশ্চিত করা। জাতিসংঘের অধীনে সারা বিশ্বে কয়েক হাজার উন্নয়ন প্রকল্প, ত্রাণ কার্যক্রম ও আন্তর্জাতিক সহায়তা সংস্থা পরিচালিত হয়। পরিবেশ ও জলবায়ু থেকে শুরু করে, শিক্ষা, শিশু অধিকার, গণতন্ত্র ও মানবাধিকার সহ বিভিন্ন বিষয়ে আন্তর্জাতিক চুক্তিও সম্পন্ন হয়ে থাকে জাতিসংঘের তত্ত্বাবধানে।

জাতিসংঘের প্রধান ছয়টি শাখার মধ্যে সাধারণ পরিষদ, নিরাপত্তা পরিষদ ও সেক্রেটারিয়েট বা সচিবালয়-এই তিনটি শাখা বিশ্বসংস্থাটির কার্যক্রম পরিচালনার জন্য অপরিহার্য।

নিরাপত্তা পরিষদের সদস্য ১৫টি দেশ। আর সেক্রেটারিয়েটকে বিবেচনা করা হয় জাতিসংঘের প্রশাসনিক প্রাণকেন্দ্র হিসেবে। জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদ এই সংস্থাটির একমাত্র শাখা যেখানে ১৯৩টি সদস্য দেশের সবাই প্রতিনিধিত্ব করার সুযোগ পায়। সাধারণ পরিষদে ভোটাভুটিতে প্রত্যেক সদস্যের ভোট সমান গুরুত্ব পেয়ে থাকে।

নিরাপত্তা পরিষদের সুপারিশ অনুযায়ী সাধারণ পরিষদ জাতিসংঘের মহাসচিব কে হবেন, তাও নির্ধারণ করে থাকে।

কী আলোচনা হবে সাধারণ পরিষদে?

এবারের সভায় টেকসই উন্নয়ন নিয়ে সম্মেলন অনুষ্ঠিত হচ্ছে ১৮ ও ১৯ সেপ্টেম্বর। সভায় অংশগ্রহণকারী দেশগুলো জাতিসংঘের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা কীভাবে অর্জন করা যায়, সে বিষয়ে আলোচনা করবে।

এই লক্ষ্যমাত্রাগুলোর মধ্যে রয়েছে ক্ষুধা ও দারিদ্র নিরসন, সারা বিশ্বে মানুষের আয় বৃদ্ধি ও শিক্ষার প্রসার নিশ্চিত করা এবং মানুষের জন্য সুপেয় পানি ও প্রাথমিক স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করা। এরপর ১৯ থেকে ২৬ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত চলবে সাধারণ সভার আলোচনা।

এ বছর প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব পালন করছেন ত্রিনিদাদ অ্যান্ড টোবাগোর কূটনীতিক ডেনিস ফ্রান্সিস।

এবারের সভার ফলাফল কী হতে পারে?

বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে নেতারা জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের সভায় অংশ নিতে আসলেও মূলত সভার বাইরে নেতাদের মধ্যে অনানুষ্ঠানিকভাবে হওয়া বৈঠকগুলোই সাধারণত সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক হয়ে ওঠে।

এবারের সাধারণ সভায় ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি অংশ নেবেন এবং তার দেশে চলমান যুদ্ধ নিয়ে বক্তব্য দেবেন।

তবে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন, চীনের প্রেসিডন্টে শি জিনপিং ও ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল মাখোঁ, যুক্তরাষ্ট্রের প্রধানমন্ত্রী রিশি সুনাকও এবারের সাধারণ সভায় যোগ দিচ্ছেন না।

সাধারণ সভার বিতর্ক কীভাবে কাজ করে?

সাধারণত সাধারণ সভায় প্রথম বক্তব্য দেয় ব্রাজিলের নেতা, তারপর বক্তব্য রাখেন স্বাগতিক যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট।

জাতিসংঘের ছয়টি আনুষ্ঠানিক ভাষা আরবি, চাইনিজ, ইংরেজি, ফরাসি, রাশিয়ান, স্প্যানিশ - এর যে কোনো একটি ব্যবহার করে প্রত্যেক দেশের নেতা বা নেতার প্রতিনিধি বক্তব্য দিতে পারে।

প্রত্যেক দেশের প্রতিনিধিরা দেশের নাম অনুযায়ী ইংরেজি অ্যালফাবেটিক অর্ডারে বসে থাকেন। তবে প্রথম আসনে কোন দেশ বসবে, তা নির্ধারণ করেন জাতিসংঘ মহাসচিব।

 



মন্তব্য করুন